পুলিশের বাধাঁয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে যেতে পারেনি আ’লীগ সভাপতি নুর মোহাম্মদ

মাসুদ রানা ॥
পুলিশের বাধাঁর কারনে শোক দিবসের কোন অনুষ্ঠানে যেতে পারেনি বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শিল্পপতি নুর মোহাম্মদ ও দলীয় নেতাকর্মীরা। সোমবার দুপুরে বকশীগঞ্জ উপজেলার পাররামরামপুর মোড়ে ও সাধুরপাড়া ইউনিয়নে যাওয়ার পথে পুলিশি বাধাঁর সম্মুখীন হন তারা। বহর থেকে বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আ’লীগ নেতারা। এই ঘটনায় নিরাপত্তা জোরদারে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা যায়, বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দিনব্যাপী কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়। সকালে পতাকা উত্তোলন,কালোব্যাজ ধারন,বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন,মিলাদ ও দোয়া মাহফিল,দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এছাড়াও বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদ ও সিনিয়র নেতৃবৃন্দ নিয়ে দেওয়ানগঞ্জে শোক দিবসের অনুষ্ঠানে যাওয়ার কর্মসূচীর সিদ্ধান্ত হয়। মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেলের বহর নিয়ে রামরামপুর মোড় হয়ে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় প্রবেশের পথে বাধাঁর সম্মুখীন হন নুর মোহাম্মদ ও দলীয় নেতাকর্মীর। সানন্দবাড়ী পুুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ আবদুর রহিম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে রাস্তায় বেড়িকেট দিয়ে তাদের যেতে বাধাঁ দেন। পুলিশি বাধাঁর মুখে গাড়ির বহর সেখান থেকে ফিরে সাধুরপাড়া যাওয়ার পথে বটতলা এলাকায় আবারো পুলিশি বাধাঁর মুখে পড়েন তারা। বাধ্য হয়ে শোক দিবসের অনুষ্ঠানে না গিয়ে ফিরে আসেন আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সম্ভাব্য এমপি প্রার্থী নুর মোহাম্মদসহ তার নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য,গত রোববার রাতে বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদ কে শোক দিবস উপলক্ষে দেওয়ানগঞ্জের কোন অনুষ্ঠানে যেতে নিষেধ করে উপজেলা প্রশাসন। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে উল্লেখ করে তাকে দেওয়ানগঞ্জ যেতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিষেধ করা হয়। এই ঘটনায় রাতেই দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করে প্রতিবাদ জানায় বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ।

সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয় বলেন, দেওয়ানগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল চন্দ্র ধর আমাকে ফোন করে দেওয়ানগঞ্জে শোক দিবসের কোন অনুষ্ঠানে যেতে নিষেধ করেছেন। কি কারনে যাওয়া যাবে না জানতে চাইলে ওসি বলেন উপরের নির্দেশ আছে। তিনি আরো বলেন বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমপি পদ প্রার্থী। জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচীতে অংশ গ্রহনের সুযোগ রয়েছে তার। আওয়ামীলীগ করি অথচ জাতীয় অনুষ্ঠানে যেতে বাধাঁ দিচ্ছে প্রশাসন। ১১ টার দিকে দেওয়ানগঞ্জ যাওয়ার পথে পুলিশি বাধাঁর কারনে আমরা যেতে পারিনি।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শিল্পপতি নুর মোহাম্মদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দীর্ঘদিন যাবত সততা ও নিষ্ঠার সাথে বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। জাতির পিতার শাহাদাৎ বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যেতে পারবো না এটা কেমন কথা। অদৃশ্য ইশারায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাধাঁ দেওয়া হয়েছে। পুলিশি বাধাঁর কারনে আমিসহ দলীয় নেতাকর্মীরা কেউ শোক দিবসের অনুষ্ঠানে যেতে পারিনি।
এ ব্যাপারে দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল চন্দ্র ধর জানান,আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশংকা রয়েছে মনে করে তাকে এই সফর বাতিল করতে বলা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here