ময়মনসিংহে শতভাগ স্বচ্ছতা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে বিনা পয়সায় পুলিশে চাকরি

0
128

সুমন ভৌমিকঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ৪১ পূরণের লক্ষমাত্রা নিয়ে বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগকে সর্ম্পূণ স্বচ্ছতার সহিত ঢেলে সাজানোর লক্ষ্যে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিয়োগ সম্পন্ন করতে পুলিশ বিভাগকে আইজিপি কঠোর নির্দেশ প্রদান করেছেন।
প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার বাস্তবায়নে আইজিপির কঠোর ভূমিকায় ময়মনসিংহের পুলিশ বিভাগ ট্রেইনি রিক্রুটিং কনস্টেবল (টিআরসি) পদে প্রার্থীগণের শারীরিক, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণের শর্ত সাপেক্ষে সম্পূর্ণ মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে অত্যন্ত স্বচ্ছতায় এই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। যার মূল নেতৃত্বে ছিলেন ময়মনসিংহের সুযোগ্য পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান (বিপিএম-সেবা)।

৫ নভেম্বর (শুক্রবার) দিবাগত রাত সোয়া ১২টায় ময়মনসিংহ পুলিশ লাইন্সে ট্রেইনি রিক্রুটিং কনস্টেবল (টিআরসি) পদে নিয়োগ পরীক্ষার (উত্তীর্ণদের রোল নম্বর ও নাম) চূড়ান্ত ফলাফল মাইকে ঘোষণা করেন ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান। এ সময় চাকরি প্রার্থীরা আনন্দে আবেগ আপ্লুত হয়ে পরেন। মা-বাবা ও আত্মীয়-স্বজনদের হৃদয়স্পর্শী খবরে ছেলে-মেয়েকে জড়িয়ে অশ্রুভেজা চোখে উল্লাস করতে দেখা যায়।

অর্থ ছাড়া চাকুরী সেটা ছিল স্বপ্ন। সেই স্বপ্নকে বাস্তবে পরিনত করে হতদরিদ্র পরিবার গুলোর মাঝে আশার প্রদীপ জ্বালিয়েছেন ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান। তিনি সরকার নিধারিত ১শত টাকার ট্রেজারি চালান ও ৩ টাকার ফরমে সৌভাগ্য ১২৬ জনকে সম্পূর্ন স্বচ্ছতা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) পদে চাকুরীর সুযোগ করে দিয়েছেন। যার মধ্যে ১০৯ জন পুরুষ ও ১৭ জন নারী। এছাড়া ১৯ জন টিআরসি পদে অপেক্ষমাণ।

আধুনিক বাংলাদেশ ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন পূরনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের স্বচ্ছতা অত্যন্ত প্রয়োজন। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে এসপি মোহাঃ আহমার নিজে উপস্থিত থেকে প্রথম দিন ৪ হাজার ২৮০ জন পরীক্ষার্থী শারীরিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে ৭১৬ জন উত্তীর্ণ হয়ে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেয়। পরে লিখিত পরীক্ষায় পাস করে ১৮৫ জন।
শারীরিক, লিখিত, মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ যোগ্যতা ও মেধা তালিকার ১২৬ জন ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদের জন্য মনোনীত করা হয়। যার কৃতিত্বের অধিকারী ময়মনসিংহের বর্তমান এসপি মোহাঃ আহমার। তিনি নিয়োগ প্রক্রিয়ার কাজে নিয়োজিত সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

এসপি মোহাঃ আহমার কোন ধরনের আর্থিক লেনদেন করে প্রতারিত না হওয়ার জন্য সকল চাকরি প্রত্যাশীদের আগে থেকেই জেলা গোয়েন্দা পুলিশের মাধ্যমে বিভিন্ন ভাবে সতর্ক করে দিয়েছিলেন। চাকরি প্রত্যাশীরা দালালদের মাধ্যমে প্রতারিত না হয়, সেজন্য গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করেছে। কিছু দালাল পুলিশের হাতে ধরাও পরেছে।

ময়মনসিংহ পুলিশ লাইন্সে বিনা পয়সায় ট্রেইনি রিক্রুট কনষ্টেবল নিয়োগ চুড়ান্তভাবে উর্ত্তীন তালিকার নাম প্রকাশ হওয়ায় কৃতিত্বের অধিকারী এসপি মোহাঃ আহমার ময়মনসিংহ পুলিশ বিভাগে সততা ও ধীরতাপূর্ন সাহসীকতা দেখিয়েছেন।

ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান ফলাফল ঘোষণার পর বলেন, শতভাগ স্বচ্ছতা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে এ নিয়োগ সম্পন্ন হওয়ায় আমি অভিভূত এবং নিজেকে গর্বিত মনে করছি। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম প্রতিরোধে নিয়োগ পরীক্ষার আগে থেকে শেষ পর্যন্ত আমরা সতর্ক ছিলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here